আর্ন্তজাতিক

৬০ লক্ষ ইনকাম ট্যাক্স দিলেন পকোড়াওয়ালা

লুধিয়ানা: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী একসময় বলেছিলেন, “কেউ যদি পকোড়া বিক্রি করে দিনে দুশো টাকা আয় করেন, তাহলে কি তা কাজ নয়?” আর এই মন্তব্য নিয়ে বারবার বিরোধীদের কটাক্ষ শুনতে হয়েছে প্রধানমন্ত্রীকে। তবে এবার এক পকোড়াওয়ালাই প্রমাণ করে দিলেন যে মোদীই ঠিক। পকোড়া বিক্রি করে যে চরম উন্নয়ন করা সম্ভব, সেটাই প্রমাণ করে দিলেন তিনি।

লুধিয়ানার এক পকোড়াওয়ালা ইনকাম ট্যাক্স হিসেবে জমা করলেন ৬০ লক্ষ টাকা। আর এই টাকার পরিমাণ থেকে সহজেই অনুমান করা যায় যে, তার রোজগার টা ঠিক কত। শুধু তাই নয়, ওই পকোড়া ব্যবসায়ীর দু’আনা আউটলেট রয়েছে। একটি লুধিয়ানার গিল রোডে, অন্যটি মডেল টাউনে। ব্যবসায়ী নিজের আসল রোজগার চেপে যাচ্ছেন এমন অভিযোগ আসার পরই সতর্ক হয় আয়কর বিভাগ। তাঁর দুটি আউটলেটেই হানা দেয় ইনকাম ট্যাক্স অফিসাররা।

গত শুক্রবার সকালে দেব রাজ নামে ওই পকোড়াওয়ালা আয়কর বিভাগে ৬০ লক্ষ টাকা জমা দেয়। সারাদিন ধরে দুটি আউটলেটের বিক্রি ও রোজগার খতিয়ে দেখা হয়। প্রত্যেকদিনের রোজগাররে পরিমাণ হিসেব করে ট্যাক্স জমা নেয় আয়কর বিভাগ।

১৯৫২ তে তৈরি হয়েছিল ওই পকোড়ার দোকান। গিল রোডের পকোড়া দোকান তৈরি করেছিলেন পান্না সিং নামে এক ব্যবসায়ী। এরপর থেকে গত কয়েক দশক ধরে তাদের পকোড়া এলাকায় যথেষ্ট জনপ্রিয়। এমনকী পঞ্জাবের বাইরেও এই দোকানের পনির পকোড়া বা দহি ভাল্লার নাম ছড়িয়ে পড়ে। তাবড় রাজনৈতিক নেতা থেকে শুরু করে পুলিশ অফিসার বা শিল্পপতি, প্রত্যেকেই তাদের ক্রেতা। তাই কার্যত পকোড়া বিক্রি করেই সাফল্যের শিখরে পৌঁছেছেন ওই ব্যক্তি।

এদিকে, ওই এলাকাতেই এক ড্রাই ফ্রুট বিক্রেতা ১ কোটি টাকা জমা করেছেন আয়কর বিভাগে।