আমেরিকা

হারিকেন মাইকেলের আঘাতে লণ্ডভণ্ড ফ্লোরিডা, এখন পর্যন্ত নিহত ২

মেক্সিকোর সৈকতবর্তী এলাকায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে শত শত বাড়িঘর (ছবি:এপি)

ক্যারিবিয়ান সাগরে সৃষ্ট হারিকেন মাইকেলের তাণ্ডবে লণ্ডভণ্ড হয়ে গেছে যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য ফ্লোরিডা। গাছপালা-বৈদ্যুতিক খুঁটি যেমন এখানে-ওখানে উপড়ে পড়েছে, তেমনি তছনছ হয়ে গেছে অনেক বসতবাড়ি। এখন পর্যন্ত দুই জনের প্রাণহানির খবর পাওয়া গেছে। হারিকেন মাইকেল ঘণ্টায় ২২৫ কিলোমিটার বেগে রাজ্যের উত্তর-পশ্চিমে প্যানহ্যান্ডেল অঞ্চলে আছড়ে পড়ে। হারিকেনটির তাণ্ডবের পর সৈকতবর্তী শহরগুলোতে বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।

ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের কর্মকর্তারা জানান, মাইকেলের তাণ্ডবে দুই জনের মৃত্যু হয়েছে। গোটা এলাকা জুড়ে ব্যাপক ধ্বংসযজ্ঞের চিহ্ন দেখা যাচ্ছে। জরুরি সেবা বিভাগের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ফ্লোরিডা, অ্যালাবামা ও জর্জিয়ায় লাখ লাখ লোক বিদ্যুতবিহীন অবস্থায় আছেন। তারা কবে নাগাদ বিদ্যুতের স্বাভাবিক সংযোগ পাবেন সে ব্যাপারে কর্তৃপক্ষ নিশ্চিত নয়।
ন্যাশনাল হারিকেন সেন্টারের (এনএইচসি) আবহাওয়াবিদ ডেনিস ফেল্টজেন জানিয়েছেন, আগের রেকর্ড অনুযায়ী এর আগে ফ্লোরিডার প্যানহ্যান্ডেলে চার মাত্রার কোনো ঝড় আঘাত হানেনি। ফ্লোরিডার তিন লাখ ৭০ হাজারেরও বেশি লোককে ঘরবাড়ি ছেড়ে নিরাপদে আশ্রয় নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হলেও অনেকে এ সর্তকতা আমলে নেয়নি।
যুক্তরাষ্ট্রে আঘাত হানা তৃতীয় সর্বোচ্চ শক্তিশালী ঝড় মাইকেল। হারিকেনের তীব্রতা মাপা স্কেলে এর চাপ পৌঁছায় ৯১৯ মিলিবার-এ। এর আগে ১৯৬৯ সালে মিসিসিপি উপকূলে আঘাত হানা হারিকেন ক্যামিলি এবং ১৯৩৫ সালে ফ্লোরিডায় আঘাত হানা লেবার ডে হারিকেন এর চেয়ে তীব্র ছিল। মাইকেলের প্রভাবে কয়েকটি এলাকায় আট ইঞ্চি এবং ফ্লোরিডায় এক ফুট বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস দেয়া হয়। ঝড়ের পর ফ্লোরিডায় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প।