অন্যরকম

সেতুর নীচে একি দুঃসাহসিক কান্ড ঘটালেন এই মহিলা! জানলে হুঁশ উড়ে যাবে আপনার…

টনাটি ঘটেছে ওড়িশায়। দরিদ্রতার ছায়ায় মানুষক নিজেকে সঁপে দিয়েছেন এঘটনা নতুন কিছু নয়। কিন্তু এবার যা ঘটলো তা হেরে যাওয়া বা নিজেকে সঁপে দেওয়ার ঘটনাতো একেবারেই নয়। বরঞ্চ সাহসিকতা এবং সহ্যশক্তির পরিচয় দিলেন একজন মা।

ওড়িশায় বসবাসকারী নাভিন পাতনায়ক নামে এই মহিলা অন্তসত্ত্বা ছিলেন অনেক দিন ধরেই। সেই সঙ্গেই এতইসাথে দরিদ্রতার সাথে লড়াইও করে চলছিলেন। স্বামীর হাত ছেড়ে দেওয়া সংসার, অন্যদিকে নিজের গর্ভে সন্তান এরকম অবস্থায় তাকে লড়তে হচ্ছিল মাথা গোঁজার একটা আস্তানার জন্য। সামান্য কিছু কষ্টসিদ্ধ উপার্জনের পর গাছের ডাল পাতা কেটে একটা কুঁড়ে ঘরে থাকছিলেন ভদ্রমহিলা। কিন্তু হাতির অত্যাচারের দাপটে শেষমেশ লন্ডভন্ড হয়ে যায় তার সেই ঘর।তারপর থেকে খোলা আকাশের নিচেই থাকতেন। কিন্তু এবার সময় এলো সন্তান প্রস্রবের। আর তখনই তৈরী হলো সবচেয়ে বড়ো শিরোনাম। কোনোরকম ডাক্তারি সাহায্য ছাড়াই একটি পরিত্যক্ত-ভাঙা সেতুর নীচে সন্তান প্রস্রব করলেন তিনি। তার এরকম সাহসি পদক্ষেপের প্রশংসা যেমন হচ্ছে। তেমনই এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে তীব্র নিন্দে করা হচ্ছে ওড়িশা সরকারের। দুঃস্থ মানুষদের জন্য সরকারি পরিষেবা কোথায়! এরকম প্রশ্ন উঠে আসছে এই ঘটনার পর থেকে।