বিনোদন

সুখ নেই এই বলিউডের তারাকাদের !

এফপি

জাহ্নবি কাপুরের ‘ধাড়াক’ মুক্তি পেয়েছে। বক্স অফিসে সাফল্য পেয়েছে, প্রশংসিত হয়েছেন নবাগত অভিনেত্রী জাহ্নবি কাপুর। যেকোনো মায়ের মতই সন্তানের প্রথম সিনেমা নিয়ে উচ্ছ্বসিত ছিলেন শ্রীদেবী। কিন্তু, নিয়তিতে একটু ভিন্ন কিছুই লেখা ছিল। গেল ২৪ ফেব্রুয়ারি না ফেরার দেশে চলে গেছেন শ্রীদেবী। দুবাইয়ে পারিবারিক একটা বিয়ের অনুষ্ঠানে গিয়ে দুর্ঘটনাবশত বাথটাবে ডুবে গিয়ে শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। ফলে, জীবনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দিনে, ক্যারিয়ারের সবচেয়ে আনন্দময় মুহূর্তে মাকে পাশে পাওয়া হয়নি জাহ্নবির।

তবে, এই অভিজ্ঞতাটা কেবল জাহ্নবীর একার না। বেশ কয়েকজন তারকা আছেন, যাদের প্রথম সিনেমা মুক্তির আগেই জীবন নদীর ওপারে চলে গেছেন তাঁদের মায়েরা। চলুন সেসবের স্মৃতিচারণা করা যাক।

নার্গিস-সঞ্জয় দত্ত

ক্যান্সারে আক্রান্ত কিংবদন্তিতুল্য অভিনেত্রী নার্গিস মারা যান ১৯৮১ সালের তিন মে। আগে থেকেই ‘রকি’ সিনেমার প্রিমিয়ারের দিনক্ষণ ঠিক হয়েছিল এর ঠিক তিন দিন বাদেই। মায়ের কথা রেখেছিলেন সঞ্জয় দত্ত। প্রিমিয়ারের ডেট পেছাননি। সিনেমাটি আকাশচুম্বি সাফল্য পায়।

মোনা কাপুর-অর্জুন কাপুর

বনি কাপুরের ছেলে অর্জুনের অভিষেক হয় ২০১২ সালের ‘ইশাকজাদে’ সিনেমা দিয়ে। সিনেমা মুক্তির দিন পনেরো আগে ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মারা যান তাঁর মা মোনা শৌরি কাপুর। মোনা হলেন বনি কাপুরের প্রথম স্ত্রী।

শাহরুখ খান-ফাতিমা খান

শাহরুখ খান বলিউডে আগমনের আগেই মাকে হারান। শাহরুখ খান তখন স্ট্রাগলার। কালেভদ্রে ছোটখাটো কাজ পান। ছেলেকে বড় তারকা হতে দেখার স্বপ্ন ছিল লতিফ ফাতিমা খানের। ছেলে একদিন ঠিকই বড় তারকা হয়েছিল, কিন্তু সেদিন আর তিনি ছিলেন না। অনেকবার অনেক সাক্ষাৎকারে এই নিয়ে আক্ষেপ করেছেন স্বয়ং কিং খানও।

সুশান্ত সিং রাজপুত

২০১৩ সালের সিনেমা ‘কাই পো চে’ দিয়ে বলিউডে অভিষেক হয় সুশান্ত সিং রাজপুত। টেলিভিশন পর্দা থেকে উঠে আসা এই তারকা কালক্রমে ‘পিকে’, ‘ডিটেকটিভ ব্যোমকেশ বকশি’ কিংবা ‘এম এস ধোনি’র মত ব্যবসাসফল ছবি করেছেন। তবে, তাঁর ক্যারিয়ারের একদম গোড়া থেকে সাফল্য অবধি কিছুই দেখে যেতে পারেননি তাঁর মা। ২০০২ সালে তিনি মারা যান। সুশান্তের বয়স তখন মাত্র ১৬ বছর।

স্মিতা প্যাটেল-প্রতীক বাব্বার

প্রতীকের মা হলেন এক কালের স্বনামধন্য অভিনেত্রী স্মিতা প্যাটেল। ১৯৮৬ সালে প্রতীককে জন্ম দিতে গিয়েই মারা যান তিনি। প্রতীকের প্রথম সিনেমা ২০০৮ সালে মুক্তি পাওয়া ব্যবসা সফল ‘জানে তু ইয়া জানে না’। সেই সিনেমার জন্য সেরা সহ অভিনেতার ক্যাটাগরিতে বিশেষ জুড়ি পুরস্কার পেয়েছিলেন তিনি। এরপর ‘ধোবি ঘাট’, ‘এক দিওয়ানা থা’, ‘বাঘি টু’-এর মত সিনেমাও করেন তিনি। তাঁর বাবা হলেন রাজ বাব্বার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here