আর্ন্তজাতিক

‘সবারই সমান অধিকার রয়েছে, ভারত ছেড়ে মুসলিমরা কোথাও যাবে না’

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ শহর থেকে রেল স্টেশন। দেশজুড়ে নাম বদলের হিড়িক। কাঠগড়ায় কেন্দ্র ও বিজেপি পরিচালিত বিভিন্ন রাজ্য সরকার। ভারতে গেরুয়াকরণের উদ্দেশ্যেই এই নাম বদল বিজেপির। অভিযোগ কংগ্রেসের।

এবার নাম বদল ইস্যুতে একদা শরিক বিজেপিকে তীব্র ভাষায় আক্রমণ করলেন পিডিপি নেত্রী তথা জম্মু কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মেহেবুবা মুফতি। তিনি বলেন, মোদী, যোগীরা দেশের মুসলিমদের বার্তা দিচ্ছে ভারত তাদের দেশ নয়। দেশের ঐক্যের ঐতিহ্যে এটা বড় আঘাত।

ক্ষমতায় এসেই উত্তরপ্রদেশের প্রাচীন শহর ফৈজাবাদ, এলাহাবাদের নাম বদলের সিদ্ধান্ত নেয় যোগী আদিত্যনাথ সরকার। ফৈজাবাদ অযোধ্যা ও এলাহাবাদের নাম হয় প্রয়াগরাজ। মোঘলসরাই স্টেশনের নাম বদলে হয় পণ্ডিত দীনদয়াল উপাধ্যায় জংশন। বিজেপির যুক্তি ছিল, দেশের প্রাচীন ঐতিহ্যের কথা ভেবেই এই নাম বদলের ভাবনা।

নাম বদল ইস্যুতে গেরুয়া শিবিরের ভাবনায় ‘নগ্ন হিন্দুত্বে’র গন্ধ পাচ্ছে বিরোধী শিবির। বিজেপির ঐতিহ্যের ধারণাকে কটাক্ষ করেছেন পিডিপি নেত্রী। তিনি বলেছেন, ”বহুত্ববাদই বারতীয় সংস্কৃতীর ঐতিহ্য। সবাই মিলে মিশে এখানে রয়েছে দিনের পর দিন। নাম বদল কের যেন বিজেপি বলতে চাইছে এদেশে মুসলিমদের থাকার কোনও অধিকার নেই।

তাঁর হুশিয়ারি, এদেশ সবার। হিন্দু, মুসলমান সবারই সমান অধিকার রয়েছে এদেশে বসবাসের। মুসলিমরা কোথাও যাবে না দেশ ছেড়ে।

মোদী শাহ জুটিকে মেহেবুবা মুফতির জিজ্ঞাসা, শহরের নাম বদলের আগে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীসভায় বিজেপির তিন মুসলিম মন্ত্রী শাহনাওয়াজ হুসেন, আব্বাস নাকভি ও মহসিন রেজার নাম বদল করা হচ্ছে না কেন?

১৯শের ভোটে বিজেপি বিরোধী দলগুলি প্রচারে পুঁজি অবশ্যই ‘নাম বদল’ ইস্যু। রাহুল থেকে মমতা, চন্দ্রবাবু থেকে মেহেবুবার আক্রমণেই তা স্পষ্ট।