লাইফস্টাইল

সঙ্গী বয়সে বড় হলে যেসব সমস্যা হতে পারে!

প্রেমিকের থেকে প্রেমিকা বা স্বামীর থেকে স্ত্রী বয়সে একটু ছোট হবে এমনটাই আমরা স্বাভাবিক বলে মনে করি। অনেক সময় এমনটাও দেখা যায়, যে মেয়েরা ছেলেদের থেকে বয়সে কিছুটা বড় হয়ে থাকে।

কিন্তু পরবর্তীতে এই বিষয়টি অনেকেই স্বাভাবিকভাবে নিতে পারেন না। কেননা, আমাদের দেশের সমাজব্যবস্থায় এ বিষয়টি মোটেও স্বাভাবিক নয়।

তবে এটাও ঠিক যে প্রেম-ভালোবাসা বয়স দেখে হয় না। যেকোনো বয়সেই প্রেমের সম্পর্ক হতে পারে। এমনকি বিয়েও করতে পারেন।

কিন্তু অসম’ বয়সী সম্পর্ককে কেউ অতি সহজে মেনে নিতে চায় না বা পারে না। অনেক সময় দেখা যায় যে, বয়সের পার্থক্যের কারণে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বিভিন্ন রকম সমস্যা দেখা দেয়।

চলুন জেনে নেই, জীবন সঙ্গী বয়সে বড় হলে কী কী ধরনের সমস্যা হতে পারে-

পারিবারিক ও সামাজিক

স্ত্রী বয়সে বড় হলে পারিবারিক ও সামাজিক জীবনে বিভিন্ন ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। এর ফলে স্বামী-স্ত্রী উভয়ের মধ্যেই মানসিক চাপের সৃষ্টি হয়। যার কারণে সম্পর্কে দূরত্ব সৃষ্টি হতে পারে। এমনকি সম্পর্ক ভেঙে যেতে পারে।

বোঝাপড়া

স্বামী-স্ত্রীর বয়সের পার্থক্য বেশি হলে তাদের দু’জনের চিন্তা-চেতনা ও আচার-আচরণের এসব বিষয়গুলোর পার্থক্য দেখা দেয়। এ থেকে ভুল-বোঝাবুঝিরও সৃষ্টি হতে পারে। এমনকি সংসার ভেঙে যেতে পারে।

গর্ভধারণ

সাধারণত ৩০ থেকে ৩৫ বছরের পরেই গর্ভধারণের ব্যাপারটি মেয়েদের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে যায়। তাই স্ত্রীর বয়স বেশি হলে তা আরো বেশি সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে। এক্ষেত্রে তাই যতটা সম্ভব মেয়েদের বয়সের দিকে নজর দেওয়া।

যৌনজীবন

স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বয়সের পার্থক্য খুব বেশি হলে একটা সময়ে গিয়ে যৌনজীবনে সমস্যার সৃষ্টি হয়। আর এর ফলে দাম্পত্য সম্পর্কে কলহ সৃষ্টি হয়। এর ফলে সংসার ভেঙে যেতে পারে।