লাইফস্টাইল

সঙ্গীনির ঘাড়ের নিঃশ্বাস হতে পারে আপনার মৃত্যু

গোটা রাত জেগে কাটে? ঘুম আসে না? নাকি বেশি রাত করে শুতে যান আর সকালে নিজেকে টেনে হিঁচড়ে বিছানা থেকে তোলেন? এর মধ্যে যে কোনও একটা হলেই কিন্তু আপনার জন্য দুঃসংবাদ রয়েছে৷ মৃত্যু হয়তো আপনার জীবনে সময়ের আগে চলে আসতে পারে৷ সম্প্রতি একটি রিপোর্টে এই তথ্য প্রকাশ পেয়েছে৷

সমীক্ষা বলছে, রাতে যাদের ঘুম আসে না, সাধারণ মানুষের তুলনায় তাদের মৃত্যু তাড়াতাড়ি হয়৷ আর যারা সঠিক সময় বিছানায় যান ও সূর্য ওঠার সঙ্গে সঙ্গে ওঠেন, তারা অপেক্ষাকৃত বেশি সুস্থ থাকে৷ তারা রোগ থেকে অপেক্ষাকৃত দূরে থাকে৷ প্রায় হাফ মিলিয়ন অংশগ্রহণকারীকে নিয়ে এই সমীক্ষা করা হয়েছিল৷ দেখা গিয়েছে, যারা অনিদ্রায় ভোগে বা দেরিতে ঘুমোয় তাদের মৃত্যুর চান্স ১০ শতাংশ বেশি৷ জার্নাল ক্রোনোবায়োলজি ইন্টারন্যাশনালে এই খবর প্রকাশ পেয়েছে৷

যাদের বেশি মাত্রায় মধুমেহ রয়েছে, সাইকোলজিক্যাল ডিসঅর্ডার রয়েছে বা স্নায়ুঘটিত কোনও রোগ রয়েছে তাদের ক্ষেত্রেই এই প্রবণতা বেশি দেখা যায়৷ শিকাগোর নর্থওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটি ফেইনবার্গ স্কুল অফ মেডিসিন অ্যাসোসিয়েটের প্রফেসর ক্রিস্টেন কুন্টসন বলেছেন, যারা দেরিতে ঘুম থেকে ওঠে, তাদের একটি আভ্যন্তরীণ বায়োলজিক্যাল ক্লক তৈরি হয়৷ বাইরের ঘড়ির সঙ্গে তা মিল খায় না৷ তার ফলেই যাবতীয় সমস্যার সূত্রপাত হয়৷ সাইকোলজিক্যাল স্ট্রেস, খাদ্যাভ্যাসের জন্য এমন হতে পারে৷

এছাড়া নিয়মিত শরীরচর্চা না করলেও রাতে অনিদ্রা দেখা দিতে পারে৷ ঠিকমতো ঘুম না হলে বা রাতে প্রায়ই ঘুম ভেঙে গেলেও মৃত্যুর সম্ভাবনা বেড়ে যায়৷ ড্রাগ বা অ্যালকোহল ব্যবহার করলে এর প্রভাব ঘুমের উপর বেশি পড়ে৷

৩৮ থেকে ৭৩ বছর পর্যন্ত মানুষকে নিয়ে পরীক্ষা চালানো হয়েছিল৷ প্রায় ৪ লাখ ৩৩ হাজার মানুষ এই সমীক্ষায় অংশ নিয়েছিল৷ প্রায় ৬ মাস পর এর নমুনা সংগ্রহ করা হয়৷ বার্লিনের ইউনিভার্সিটি অফ সুরের প্রফেসর ম্যালকোলম ভন সানজ জানিয়েছেন, এখনকার জীবনে কাজ শেষ করতে করতেই রাত হয়ে যায়৷ ফলে বিছানায় যেতে আরও রাত হয়৷ স্বভাবতই সকালে ঘুম থেকে উঠতে দেরি হয়৷ কিন্তু এগুলির উপর নিজেদেরই নিয়ন্ত্রণ করতে হবে৷ নাহলে দ্রুত মৃত্যু অবস্বম্ভাবী৷