জাতীয়

লাশের ধ্বংসস্তূপ, এরই মাঝে সেলফি নিয়ে ব্যস্ত পথচারী

বর্তমানে পৃথিবীর প্রায় সব মানুষই সেলফি সমন্ধে জানে। যেকোনো পরিস্থিতির মধ্যেই সেলফি তোলা বিশ্ব সংস্কৃতির একটি অংশ হয়ে দাড়িয়েছে। এ নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা হয়েছে অনেক। কিন্তু সেলফি-মগ্ন লোকজনের এসব আলোচনা-সমালোচনায় কিছু আসে যায় না। কেউ কেউ আবার সেলফির নেশায় কিছু অদ্ভূত কাণ্ড করে ফেলেন। যা নিজেও তারা ভেবে দেখেননা।

এমনই এক দৃশ্য আজ রোববার দেখা গেলো রাজধানীর কুর্মিটোলা এলাকায়। দুপুর ১টার দিকে সেখানে এক চালক তার বাস সড়কের পাশে দাঁড়িয়ে থাকা কলেজ শিক্ষার্থীদের ওপর তুলে দিলে ঘটনাস্থলেই মারা যান ২ জন। হাসপাতালে যাওয়ার পর মারা যান আরেকজন।

এদিকে দুর্ঘটনার খবর পেয়েই দ্রুত ঘটনাস্থলে আসেন কলেজের অন্যান্য শিক্ষার্থীরা। বিক্ষুদ্ধরা তখন সেখানে যে গাড়ি পেয়েছেন সেটিই ভাঙচুর করেছেন। ভাঙচুর করা গাড়িগুলো তখন দাঁড়িয়ে আছে ঘটনাস্থলে। রাস্তা ধ্বংসযজ্ঞের রূপ ধারণ করেছে। তিন কিশোর-কিশোরীর শরীরের তাজা রক্ত তখনও সড়কে বইছে। এমতাবস্থায় এক তরুণকে দেখা গেলো সেখানকার দৃশ্য মোবাইল ক্যামেরার ফ্রেমে এনে সেলফি তুলছেন! কেউ কেউ সেখানে দাঁড়িয়েই ফেসবুক লাইভে নিজেদের চেহারা দেখাচ্ছেন!

অবশ্য এমন ঘটনা শুধু ঢাকা বা বাংলাদেশেই নয়, ভিনদেশেও এমন খবর সংবাদমাধ্যমে আসে মাঝে মাঝেই। সম্প্রতি ভারতের রাজস্থানের একটি সেলফি ভাইরাল হয়েছিল। দুর্ঘটনার পর আহতের সাহায্যে এগিয়ে না এসে সেলফি তুলতে দেখা গিয়েছিলো এক যুবককে। সেই ছবি সামাজিক যোগাযোগ  মাধ্যেমে ছড়িয়ে পড়লে সমালোচিত হয়। সেই দুর্ঘটনায় তিনজনেরই মৃত্যু হয়। দুর্ঘটনার আধা ঘণ্টা পর্যন্ত কেউই সাহায্যে এগিয়ে আসেনি যতক্ষণ না পুলিশ ঘটনাস্থলে না পৌঁছায়।