লাইফস্টাইল

রাতে ঘর থেকে বের হয়ে ধর্ষণের শিকার তরুণী

ফরিদপুরের চরভদ্রাসন উপজেলার হরিরামপুর ইউনিয়নের বিশাই মাতুব্বরের ডাঙ্গী গ্রামে এক তরুনীকে (১৯) ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ১৯ জুলাই দিবাগত রাতে ফুপু বাড়ীতে বেড়াতে আসে ওই তরুণী। রাতে ঘরের বাইরে বের হলে দূর্বৃত্তরা তাকে জোর করে ধরে নিয়ে ধর্ষণ করে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ধর্ষিতার বড় ভাই চরভদ্রাসন থানায় এ ঘটনায় অভিযোগ দায়ের করেছে।

ভুক্তভোগী ওই তরুণী জানায়, ঘটনার দিন প্রচণ্ড গরম থাকায় সে ঘরের দরজা খুলে বাইরে আসে। এসময় হঠাৎ করেই কেউ মুখে কাপড় চেপে জোরপূর্বক পাশ্ববর্তী কাশবনে নিয়ে যায় এবং তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে দৈহিক সম্পর্ক করে। তরুণী জানান, ধর্ষক ছিলেন ফকির ডাঙ্গী গ্রামের মোহন শিকদারের ছেলে রানা (২৬)।

তরুণীর ফুপু জানান, ঘটনার দিন আমি ও আমার ভাতিজি এক সাথে ঘুমিয়েছিলাম। আনুমানিক রাত তিনটার দিকে আমার ঘুম ভেঙ্গে যায়। তাকিয়ে দেখি পাশে ভাতিজি নেই। আমি বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুজি করতে থাকি। ঘন্টা খানেক পর পরান ফকিরের ছেলে ইসমাইল ফকির (২৫) ভাতিজিকে বাড়ি পৌঁছে দিয়ে যায়।

ইসমাইল জানায়, ওই রাতে নদী থেকে বাড়ি ফেরার সময় টর্চ লাইটের আলোতে মেয়েটিকে দেখতে পাই। আমার শব্দ পেয়ে একটি ছেলে দৌঁড়ে পালায়। পরে আমি মেয়েটিকে পোশাক পরিয়ে ওর ফুপুর কাছে পৌঁছে দিয়ে আসি। শুনলাম আমাকে আসামি করা হয়েছে। এটা নিশ্চয়ই আমার বিরুদ্ধে কোনো ষড়যন্ত্র।

চরভদ্রাসন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রামপ্রসাদ ভক্ত বলেন রানা ও ইসমাইলকে আসামি করে মঙ্গলবার সন্ধায় একটি মামলা হয়েছে। ধর্ষিতা ওই তরুণীকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে পাঠানো হয়েছে।