লাইফস্টাইল

যে নারীদের যমজ সন্তান হওয়ার সম্ভাবনা বেশি!

যেকোনো নারীর জন্যই মা হওয়াটা পরম সৌভাগ্যের। তাই তো নারীরা মা হওয়ার পরে যেন পৃথিবীর শ্রেষ্ট সুখ অনুভব লাভ করেন। আর যে নারীর সন্তান হয় না, একমাত্র তিনিই বুঝতে পারেন সন্তান না হওয়ার যন্ত্রণাটা কি।

অপরদিকে, সৃষ্টি কর্তা কোনো কোনো নারীর আবার যমজ সন্তান লাভের সৌভাগ্য দান করে থাকেন। এ কারণে ওই নারীদের আনন্দের পরিমাণ যেন দ্বিগুণ বেড়ে যায়। তবে যমজ সন্তানের ব্যাপারে কিছু চমক প্রদত্ত তথ্য রয়েছে। খবর এবেলার।

কোন মহিলাদের যমজ সন্তান হওয়ার সম্ভাবনা বেশি, চলুন জেনে নিই অজানা সেই চমক প্রদত্ত কিছু তথ্য-

১. যমজ সন্তানদের হাতের ছাপ একেবারেই আলাদা। যদিও তাদের জিনের বৈচিত্র এক, তবুও হাতের ছাপ আলাদা।

২. যে সকল নারী লম্বা তাদের যমজ সন্তান হওয়ার সম্ভবনা বেশি থাকে। আইজিএফ প্রোটিন লম্বা নারীদের দেহে বেশি থাকে যা যমজ সন্তান হতে সাহায্য করে।

৩. একটি সমীক্ষার মাধ্যমে জানা গেছে, যমজ সন্তানদের মায়েরা অনেকদিন বেঁচে থাকেন।

৪. যে সব নারীরা দুগ্ধজাত দ্রব্য বেশি খেয়ে থাকেন, তাদের যমজ সন্তান হওয়ার প্রবল সম্ভাবনা থাকে।

৫. একটি সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, বিশ্বের ৪০% যমজ সন্তানের জন্ম আফ্রিকাতে। ওই সমীক্ষা এমনটিই বলছে।

৬. অধিকাংশ ক্ষেত্রে দেখা যায়, প্রায় ২২% যমজ সন্তানেরা বাঁ-হাতি হয়।

৭. এ ব্যাপারে একটি সমীক্ষা বলছে, যমজ শিশুরা নিজেদের মধ্যে একটি বিশেষ ভাষাতে কথা বলে, যা কিনা একমাত্র তারাই বুঝতে পারে।