জাতীয়

যে কারণে গাড়ি না চালানোর ঘোষণা পরিবহন মালিক সমিতির

নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে নিরাপত্তার অজুহাতে বন্ধ থাকা দূরপাল্লার বাস শুক্রবার রাত থেকে চলতে শুরু করলেও তা আবার আজ সকাল থেকে বন্ধ রাখা হয়েছে। আর এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছে যাত্রীরা।

পরিবহন মালিক ও শ্রমিক সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, শিক্ষার্থীরা যদি আজ রাস্তায় নামে তাহলে দিনে গাড়ি চলবে না। ফলে বন্ধ রাখা হয়েছে রাজধানীসহ সারাদেশের দূরপাল্লার বাস চলাচল।

এর আগে ২৯ জুলাই রাজধানীর কুর্মিটোলায় শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী বাসচাপায় নিহত হওয়ার পর থেকে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে বেশ কিছু গাড়ি ভাঙচুর হয়।

এ ঘটনার জেরে নিরাপদ সড়কের নিশ্চয়তাসহ শিক্ষার্থীদের হত্যার বিচারের দাবিতে গত কয়েকদিন রাজপথ অবরোধ করে আন্দোলন করছে শিক্ষার্থীরা। এ সময় যানবাহনে হামলার ঘটনাও ঘটে। পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয় যানবাহনের ফিটনেস সার্টিফিকেট ও চালকের লাইসেন্স।

নিরাপদ সড়কের নিশ্চয়তাসহ শিক্ষার্থীদের ‘হত্যার’ বিচারের দাবিতে আন্দোলন করছে শিক্ষার্থীরা। এ পটভূমিতে রাজধানীসহ সারাদেশে রাস্তায় পর্যাপ্তসংখ্যক গণপরিবহন নামানো হচ্ছে না। এতে দুর্ভোগে পড়েছে সাধারণ মানুষ।

তবে শিক্ষার্থীদের এই আন্দোলনে যানবাহন ভাঙচুর ও শ্রমিকদের ওপর হামলার ঘটনায় নিরাপত্তাহীনতার কারণ দেখিয়ে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে অভ্যন্তরীণ ও দূরপাল্লার বাস চলাচল বন্ধ রেখেছে মালিক-শ্রমিকরা।