আর্ন্তজাতিক

ভৃত্য নয় বন্ধু ভাবতে হবে, যুক্তরাষ্ট্রকে হুঁশিয়ারি ইমরানের

এতদিন পাকিস্তানের ভুলের দিকে আঙুল তুলত যুক্তরাষ্ট্র। এবার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে উদ্দেশ্য করে পাকিস্তানের সদ্য ক্ষমতা গ্রহণ করা প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, তার দেশ মার্কিন নীতি মেনে চলতে বাধ্য নয় এবং ওয়াশিংটনের উচিত ইসলামাবাদকে বন্ধু মনে করা, ভৃত্য নয়।

বৃহস্পতিবার বিকেলে ইসলামাবাদে যুক্তরাষ্ট্রে ইস্যুতে তার সরকারের নীতি ব্যাখ্যা করতে গিয়ে এমনটা বলেছেন তিনি।

ইমরান খান বলেন, দক্ষিণ এশিয়ায় শান্তি প্রতিষ্ঠা এবং আফগানিস্তান থেকে শান্তিপূর্ণ উপায়ে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের বিষয়ে পাকিস্তানের সহযোগিতার মুখাপেক্ষী যুক্তরাষ্ট্র। এ অবস্থায় পাকিস্তানকে নিজের ভৃত্য মনে করলে ওয়াশিংটন ইসলামাবাদের সহযোগিতা পাবে না।

তিনি আরও বলেন, আফগানিস্তান যুদ্ধে পাকিস্তানের প্রায় আট হাজার কোটি ডলারের ক্ষতি হলেও যুক্তরাষ্ট্র ইসলামাবাদকে মাত্র দুই হাজার কোটি ডলার ক্ষতিপূরণ দিয়েছে।

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও টেলিফোন করে ইমরান খানের সঙ্গে কথা বলার কয়েক ঘণ্টা পর পাকিস্তানি প্রধানমন্ত্রী এ বক্তব্য দিলেন। ফোনালাপে ইমরান খানের নেতৃত্বে পাকিস্তানের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক বজায় রাখার আগ্রহ প্রকাশ করেন পম্পেও।

মার্কিন সরকার সম্প্রতি পাকিস্তানের সেনা সদস্যদেরকে প্রশিক্ষণ দেয়ার কার্যক্রম স্থগিত ঘোষণা করেছে। একইসঙ্গে ইসলামাবাদের প্রতি আন্তর্জাতিক অর্থ তহবিলের পক্ষ থেকে সহযোগিতা বন্ধ করে দেয়ার লক্ষ্যেও কাজ করছে যুক্তরাষ্ট্র।

অন্যদিকে, ক্ষমতায় বসেই একের পর এক তকমা দেখাচ্ছেন ইমরান খান। গতকাল টুইট করে ভারতের কেরালায় বন্যাদুর্গতদের পাশে দাঁড়ানোর কথা বলেছেন ইমরান। তিনি বলেন, পাকিস্তানের মানবিকতা এখন ভারতের বন্যার্তদের সঙ্গে। যেকোনো সাহায্যের জন্য প্রস্তুত পাকিস্তান।

উল্লেখ্য, পাকিস্তানের ২২তম প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ১৮ আগস্ট (শনিবার) শপথ নিয়েছেন পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) চেয়ারপারসন ইমরান খান।