বিনোদন

ভাইজানের রেকর্ড!

কলকাতায় গেল ঈদে মুক্তিপ্রাপ্ত ছবির মধ্যে জিৎ অভিনীত ‘সুলতান দ্য স্যাভিয়র’ ১৪২টি প্রেক্ষাগৃহে প্রথম ছয় দিনে ১ কোটি ৪৮ লাখ রুপি, শাকিব খানের ‘ভাইজান এলো রে’ ৭৫টি প্রেক্ষাগৃহ থেকে ১ কোটি ৯ লাখ রুপি আর সালমান খানের ‘রেস থ্রি’ ছবিটি আয় করেছে ৬ কোটি ৮১ লাখ রুপি।

কিন্তু প্রেক্ষাগৃহ বিচারে সালমানের ‘রেস থ্রি’-এর পরেই ছিল শাকিব খানের অবস্থান। এর আগেও বাংলাদেশের অনেক নায়কের ছবি কলকাতায় মুক্তি পেয়েছে। ব্যবসায়িক দিক থেকে শাকিব সবার চেয়ে এগিয়ে।

চিত্রনায়ক শাকিব অভিনীত ‘ভাইজান এলো রে’ ছবিটি আজ সারাদেশে মুক্তি পেয়েছে। সারাদেশের ১০৯ সিনেমা হলে ছবিটি একযোগে প্রদর্শিত হবে। বাংলাদেশের ছবির আমদানি কারক প্রতিষ্ঠান ‘এন ইউ আহমেদ ট্রেডার্স’ কর্তৃপক্ষ এমনটা জানিয়েছে।

জানা যায়, ‘চড়া মূল্যে দেশের সিনেমা হল মালিকরা ‘ভাইজান এলো রে’ প্রদর্শন করতে যাচ্ছে। তার পরেও হল মালিকদের মাঝে যেন উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে। তাদের প্রত্যেশা এই ছবি দিয়ে অনেকদিনের ক্ষতি কিছুটা হলেও পুষিয়ে নেবেন।’

এস কে মুভিজের কর্নধার আশোক ধানুকা বাংলাদেশের বাজার থেকে ‘ভাইজান এলো রে’ মুক্তির আগেই ১০৯ টি সিনেমা হল থেকে অগ্রিম প্রায় ৫ কোটি টাকার টেবিল কালেকশন তুলে নিয়েছে। প্রথমবারের মতো কোন বাংলা সিনেমা সবগুলা হলে এম জি সিস্টেমে বুকিং কমপ্লিট হলো।

‘ভাইজান এলো রে’ সিনেমার সর্বোচ্চ বুকিং মানি ৫ লাখ ৫০ হাজার এবং সর্বনিম্ন ৩ লাখ ৫০ হাজার টাকা। যা শাকিবের জন্যও রেকর্ড বলা যায়। হল মালিকদের মধ্যে উৎসবের আমেজ।

‘ভাইজান এলো রে’ পুরোপুরি কলকাতার ছবি হলেও প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন বাংলাদেশের শীর্ষ নায়ক শাকিব খান। যেখানে তিনি দ্বৈত চরিত্রে অভিনয় করেছেন। শাকিব খান ছাড়াও বাংলাদেশের বেশ কয়েকজন পরিচিত মুখ অভিনয় করেছেন।