বিশেষ প্রতিবেদন

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তিতাস নদীতে নৌকা বাইচ অনুষ্ঠিত

ভরা তিতাসের বুকে আনন্দ-উচ্ছাসে নেচে গেয়ে হাজার হাজার মানুষের করতালিতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ঐতিহ্যবাহী নৌকাবাইচ অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ শনিবার  দুপুরে তিতাস নদীর শিমরাইলকান্দি শ্মশান ঘাট থেকে নৌকা বাইচ শুরু হয়ে মেড্ডা কালাগাজীর মাজার গিয়ে শেষ হয়। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসন এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে।
নৌকাবাইচ উপলক্ষে সারা শহর জুরে উৎসবমুখর পরিবেশ তৈরি হয়। সকাল থেকে জেলার বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ছোট বড় নৌকা নিয়ে উৎসাহী দর্শকেরা নদীর দুই পাড়ে হাজির হতে থাকে। দুপুর আড়াইটার দিকে প্রতিযোগিতার জন্য একের পর নৌকা অনুষ্ঠানস্থলে আসে। বেলা সাড়ে তিনটার দিকে শহরের শিমরাইলকান্দি শ্মশাট ঘাট থেকে প্রতিযোগিতার উদ্ধোধন করেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ (সদর ও বিজয়নগর) আসনের সাংসদ ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি র. আ. ম. উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী।
জেলা প্রশাসক রেজওয়ানুর রহমানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য ফজিলাতুন নেসা বাপ্পি, বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস প্রশাসন একাডেমীর রেক্টর (ভারপ্রাপ্ত সচিব) মোঃ মোশারফ হোসেন, পুলিশ সুপার মোঃ আনোয়ার হোসেন খান, বাংলাদেশ গ্যাস ফিল্ডস কোম্পানি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী মোঃ তৌফিকুর রহমান তপু, পৌর মেয়র মিসেস নায়ার কবির প্রমুখ।
নৌকা বাইচের প্রধান অতিথি উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী বলেন, নৌকাবাইচ দেশের হাজার বছরের ঐতিহ্যবাহী উৎসব। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এই ঐতিহ্যকে ধরে রাখতে প্রতিবছর এই বাইচের আয়োজন অব্যাহত থাকবে। আমরা চাই, মানুষ যেন শেকড় ভুলে না যায়।প্রতিযোগিতায় প্রথম হয় জেলার নাসিরনগর উপজেলার হরিপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান দেওয়ান আতিকুর রহমান আঁখির নৌকাকে ফ্রিজ, বিজয়নগর উপজেলার হরষপুর ইউনিয়নের সারোয়ার চেয়ারম্যানের নৌকা দ্বিতীয় স্থান লাভ করে টেলিভিশন এবং হরষপুর ইউনিয়নের বুল্লা গ্রামের নৌকা তৃতীয় স্থান লাভ করে টেলিভিশন।