লাইফস্টাইল

বাসের মধ্যে প্রকাশ্যে স্তনে হাত ভিডিও নিয়ে তোলপার দেখুন…

স্থানান্তরিত হচ্ছে রাজধানী ঢাকার সর্ববৃহৎ নগর ও আন্তজেলা বাস টার্মিনাল গাবতলী। এক বছরের মধ্যে সরিয়ে নেওয়া হবে এ বাস টার্মিনাল। ইতিমধ্যে সরিয়ে নেওয়ার প্রাথমিক পদক্ষেপ সমীক্ষার কাজ শেষ হয়েছে।এ টার্মিনালের উত্তরাংশে মেট্রোরেলের জন্য নির্মাণ করা হবে ভূগর্ভস্থ স্টেশন ভবন। এসব কারণে টার্মিনাল-সংলগ্ন সিটি পল্লী বস্তির পাঁচ একর জমি অথবা আমিনবাজারের ট্রাক টার্মিনালে স্থানান্তর করা হতে পারে এ বাস টার্মিনাল। এমন ধরনের একটি প্রস্তাব সড়ক ও সেতু মন্ত্রণালয়ে গতকাল পাঠানো হয়েছে। প্রস্তাবটি পাঠিয়েছে ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষ (ডিটিসিএ)। জানতে চাইলে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের  বলেন, বর্তমান সরকার ঢাকা মহানগরীর যানজট নিরসনে কাজ করছে। এ ছাড়া উন্নত বিশ্বের নিরাপদ ও আরামদায়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা চালু করতে মেট্রোরেলের মতো প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। এ প্রকল্প বাস্তবায়নের সুবিধার্থে সাময়িকভাবে সরিয়ে নেওয়া হতে পারে গাবতলী বাস টার্মিনাল। জানা গেছে, মেট্রোরেলের এমআরটি লাইন-৫-এর অন্তর্ভুক্ত এ রুটের সম্ভাব্য অ্যালাইনমেন্ট, স্টেশন ও ভূগর্ভস্থ লাইন নির্মাণের সম্ভাব্যতা সম্পর্কিত বিস্তারিত চূড়ান্ত প্রতিবেদন মে মাসের মধ্যে শেষ হবে। এরপর নকশা প্রণয়ন ও অর্থায়ন নিশ্চিতের পর শুরু হবে নির্মাণকাজ। ২০২৫ সালের মধ্যে নির্মাণকাজ শেষ করার লক্ষ্য রয়েছে সরকারের। আগামী রবিবার এ বিষয়ে ডিটিসিএ ভবনে প্রকল্পের অগ্রগতি বৈঠক ডাকা হয়েছে।সংশ্লিষ্টরা বলছেন, সরকারের সংশোধিত কৌশলগত পরিবহন পরিকল্পনায় (আরএসটিপি) প্রস্তাবিত মাস র‌্যাপিড ট্রানজিট (মেট্রোরেল) বা এমআরটি লাইন-৫-এর জন্য গাবতলী বাস টার্মিনালের উত্তরাংশে ভূগর্ভস্থ স্টেশন নির্মাণ করা হবে। এটি নির্মিত হবে ওপেন কাট পদ্ধতিতে। পরবর্তী সময়ে টার্মিনালের দক্ষিণাংশেও ভূগর্ভস্থ স্টেশনের সংস্থান রাখতে হবে। বলিয়ারপুর-আমিনবাজার থেকে গাবতলী হয়ে মিরপুর ১০ পর্যন্ত যাবে এমআরটি লাইন-৫। সেখান থেকে বনানী-গুলশান হয়ে ভাটারা পর্যন্ত যাবে। এর মধ্যে হেমায়েতপুর থেকে আমিনবাজার ও নতুনবাজার থেকে ভাটারা পর্যন্ত লাইনটি যাবে উড়ালপথে (এলিভেটেড)। মাঝে আমিনবাজার থেকে নতুনবাজার পর্যন্ত যাবে আন্ডারগ্রাউন্ডে। সব মিলিয়ে লাইনটির দৈর্ঘ্য হবে ১৯ দশমিক ৫ কিলোমিটার। এমআরটি লাইন-৫-এর বিস্তারিত সমীক্ষা সম্পর্কিত চূড়ান্ত খসড়া প্রতিবেদনে গাবতলীতে ভূগর্ভস্থ স্টেশন নির্মাণের প্রস্তাব করা হয়েছে।