জাতীয়

বাংলাদেশে অবাধ, সুষ্ঠু ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন দেখতে চায় যুক্তরাষ্ট্র

যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের সকল নির্বাচনকে অবাধ, সুষ্ঠু ও অংশগ্রহণমূলক দেখতে চায় বলে জানিয়েছেন ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শিয়া ব্লুম বার্নিকাট।

তিনি বলেন, সমালোচনা গণতন্ত্রের সৌন্দর্য্য। এটা বাক স্বাধীনতার অংশ। নির্বাচন কমিশনের অধীনে আসন্ন সব নির্বাচন সুষ্ঠু হবে এমন আশাবাদ ব্যক্ত করে মার্কিন দূত বলেন- ।

বৃহস্পতিবার (২৬ জুলাই) নির্বাচন ভবনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদার সঙ্গে বৈঠক শেষে তিনি এ কথা বলেন।

গাজীপুর সিটি নির্বাচন নিয়ে তার বক্তব্যের প্রেক্ষিতে চলা সমালোচনাকে পাত্তা না দিয়ে মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট বলেছেন, বাংলাদেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি এবং নির্বাচন নিয়ে তিনি যা বলেছেন বা বলছেন তা তার ব্যক্তিগত মতামত নয়। তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থানই জানিয়েছেন।

নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে বৈঠক বিষয়ে বার্নিকাট বলেন, আমরা সবসময় গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে বিশ্বাসী। নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে এই বৈঠক নিয়মিত একটি বিষয়। আমরা বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে সবসময়ই যোগাযোগ রাখার চেষ্টা করি।

নির্বাচন কমিশন নির্বাচনগুলোতে সকল দলের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।

এর আগে বিকেল সোয়া তিনটার দিকে সিইসি’র বৈঠকটি শুরু হয়। বৈঠকে ইসি সচিব মো. হেলালুদ্দীন আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।

সিইসির সঙ্গে বার্নিকাটের এটা বিদায়ী সাক্ষাতৎবলে জানা গেছে। বার্নিকাট ২০১৫ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি মার্কিন রাষ্ট্রদূত হিসেবে বাংলাদেশে যোগ দেন। আগামী আগস্টে তার ঢাকা ছাড়ার কথা রয়েছে।

বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্রের নতুন রাষ্ট্রদূত হিসেবে আর্ল রবার্ট মিলারকে মনোনীত করা হয়েছে। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ১৭ জুলাই এই কূটনীতিকের নাম ঘোষণা করেন। বতসোয়ানায় যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত হিসেবে দায়িত্ব পালনরত মিলার বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্সিয়া বার্নিকাটের স্থলাভিষিক্ত হবেন।