লাইফস্টাইল

পুরুষাঙ্গের আগা মোটা গোরা চিকন হলে কি করনীয় এর সমাধান- ঘরোয়া ট্রিটমেন্ট

একটি মানুষের পুরুষাঙ্গেরআকার তার স্বাস্থ্য,বংশগতি,জাতি ইত্যাদি বিষয়ের উপরে নির্ভর করে। এটা নিয়ে অধিক চিন্তা করারও কোন দরকার নেই।যৌন মিলনে লিঙ্গের মোটা বা চিকন কোন প্রভাব ফেলে না।হস্তমৈথুনের কারনে পুরুষাঙ্গের আকার পরিবর্তন ঘটলেঘরোয়া ট্রিটমেন্ট এর মাধ্যমেই তা ঠিক করা সম্ভব। কিন্ত অনেকই জানেন না সঠিক সমাধান কি! আজ আপনাদের সামনে তুলে কি করে আগা মোটা গোরা চিকন পুরুষঙ্গের সঠিক সনাধান, সমান টা একটা ভিডিও এর মাধ্যমে দেখান হল।

চিরতরে গ্যাস্ট্রিক ভালো করার ৫ টি ঘরোয়া সমাধান জেনে নিন !
চিরতরে গ্যাস্ট্রিক ভালো করার ৫ টি ঘরোয়া সমাধান জেনে নিন – গ্যাস্ট্রিক বা অ্যাসিডিটির সমস্যাটি প্রায় মানুষের মধ্যেই রয়েছে। পৃথিবীতে গ্যাস্ট্রিক বা অ্যাসিডিটি ভালো করার অসংখ্য ঔষধ রয়েছে। তবে আমরা ওষুধ এর পাশাপাশি ঘরোয়া ভাবে এই রোগটি খবু সহজেই প্রতিরোধ করতে পারি।

পুদিনা পাতা-
পুদিনা পাতার রস গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা দূর করতে বহুদিন ধরেই ব্যবহৃত হয়ে আসছে। প্রতিদিন পুদিনা পাতার রস বা পাতা চিবিয়ে খেলে এসিডিটি ও বদহজম থেকে দূরে থাকতে পারবেন।

গুড়-
গুড় আপনার বুক জ্বালাপোড়া এবং এসিডিটি থেকে মুক্তি দিতে পারে। যখন বুক জ্বালাপোড়া করবে সাথে সাথে একটুকরো গুড় মুখে নিয়ে রাখুন যতক্ষণ না সম্পূর্ণ গলে যায়। তবে ডায়বেটিস রোগীদের ক্ষেত্রে এটি নিষিদ্ধ।

জিরা-

এক চা চামচ জিরা ভেঁজে গুড়া করে নিন। এই গুড়াটি একগ্লাস পানিতে মিশিয়ে প্রতিবার খাবারের সময় পান করুন। এতে অনেকটাই সমাধান পাবেন আপনি।

একটি মানুষের পুরুষাঙ্গেরআকার তার স্বাস্থ্য,বংশগতি,জাতি ইত্যাদি বিষয়ের উপরে নির্ভর করে। এটা নিয়ে অধিক চিন্তা করারও কোন দরকার নেই।যৌন মিলনে লিঙ্গের মোটা বা চিকন কোন প্রভাব ফেলে না।হস্তমৈথুনের কারনে পুরুষাঙ্গের আকার পরিবর্তন ঘটলেঘরোয়া ট্রিটমেন্ট এর মাধ্যমেই তা ঠিক করা সম্ভব। কিন্ত অনেকই জানেন না সঠিক সমাধান কি! আজ আপনাদের সামনে তুলে কি করে আগা মোটা গোরা চিকন পুরুষঙ্গের সঠিক সনাধান, সমান টা একটা ভিডিও এর মাধ্যমে দেখান হল।

চিরতরে গ্যাস্ট্রিক ভালো করার ৫ টি ঘরোয়া সমাধান জেনে নিন !
চিরতরে গ্যাস্ট্রিক ভালো করার ৫ টি ঘরোয়া সমাধান জেনে নিন – গ্যাস্ট্রিক বা অ্যাসিডিটির সমস্যাটি প্রায় মানুষের মধ্যেই রয়েছে। পৃথিবীতে গ্যাস্ট্রিক বা অ্যাসিডিটি ভালো করার অসংখ্য ঔষধ রয়েছে। তবে আমরা ওষুধ এর পাশাপাশি ঘরোয়া ভাবে এই রোগটি খবু সহজেই প্রতিরোধ করতে পারি।

পুদিনা পাতা-
পুদিনা পাতার রস গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা দূর করতে বহুদিন ধরেই ব্যবহৃত হয়ে আসছে। প্রতিদিন পুদিনা পাতার রস বা পাতা চিবিয়ে খেলে এসিডিটি ও বদহজম থেকে দূরে থাকতে পারবেন।

গুড়-
গুড় আপনার বুক জ্বালাপোড়া এবং এসিডিটি থেকে মুক্তি দিতে পারে। যখন বুক জ্বালাপোড়া করবে সাথে সাথে একটুকরো গুড় মুখে নিয়ে রাখুন যতক্ষণ না সম্পূর্ণ গলে যায়। তবে ডায়বেটিস রোগীদের ক্ষেত্রে এটি নিষিদ্ধ।

জিরা-

এক চা চামচ জিরা ভেঁজে গুড়া করে নিন। এই গুড়াটি একগ্লাস পানিতে মিশিয়ে প্রতিবার খাবারের সময় পান করুন। এতে অনেকটাই সমাধান পাবেন আপনি।