আর্ন্তজাতিক

নির্বাচনের ফলাফল চ্যালেঞ্জ করেছে জিম্বাবুয়ের বিরোধীরা

জিম্বাবুয়ের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ফলাফল চ্যালেঞ্জ করে আইনি পথে হাঁটছে দেশটির বিরোধীদলগুলো। ফলে প্রেসিডেন্ট এমারসন নানগাগওয়ার রবিবারের নির্ধারিত অভিষেক অনুষ্ঠান আরো পিছিয়ে যাচ্ছে।

৩০ জুলাইয়ের নির্বাচনে নানগাগওয়ার দলের বিরুদ্ধে ভোট কারচুপির অভিযোগ করে সাংবিধানিক আদালতে প্রয়োজনীয় তথ্যাদি জমা দিয়েছেন এমডিসি জোটের নেতারা।

এ ব্যাপারে এমডিসি নেতা নেলসন চ্যামিসা এক টুইট বার্তায় জানান, আমাদের আইনজীবীরা আদালতে প্রয়োজনীয় প্রমাণাদি উপস্থাপন করেছেন।

জানা গেছে, শুক্রবার হারারের আদালতে পেপার ওয়ার্কগুলো নিয়ে হাজির হন দলীয় আইনজীবীরা। আদালত ১৪ দিনের সময় নিয়েছে অভিযোগ খতিয়ে দেখার জন্য।

ইতোমধ্যেই নানগাগওয়াকে বিজয়ী ঘোষণা করেছে জিম্বাবুয়ের নির্বাচন কমিশন। ৫০ দশমিক আট শতাংশ ভোট পেয়েছে জানুপিএফ এই নেতা। অন্যদিকে বিরোধী দলীয় নেতা চ্যামিসা পেয়েছেন ৪৪ দশমিক তিন শতাংশ ভোট।

এদিকে চ্যামিসার দাবি, ৫৬ শতাংশ ভোট পেয়েছেন তিনি। কারচুপি করে তাকে হারানো হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।