বিনোদন

নিজের ক্যারিয়ার নিজেই শেষ করেছেন এই মহা-তারকারা !

এফপি

ডেস্কনিউজ; বলিউডের একসময়ের সুপারস্টার আর এখন তাদের দেখা পর্জন্ত মেলে না জার কারন কেউ বদমেজাজি, কেউ এতই নেশাখোর যে ক্যারিয়ার নিয়ে বেহুঁশ। কেউ বা তাকে দেওয়া খুনের হুমকির কথা সামনে এনে ফেলেছিলেন। বলিউডের এক সময়ে এই সুপারস্টারদের ক্যারিয়ার প্রায় শেষ। এই শেষের পিছনে অন্য কেউ নন, তাদের ‘অবদানই’ সবচেয়ে বেশি। কী ভাবে নিজেই নিজেদের ক্যারিয়ার নষ্ট করেছেন তারা?

রাজেশ খান্না: বলিউডের প্রথম সুপারস্টার। তবে শুধু ভাল অভিনয়ই করতেন না, অত্যন্ত বদমেজাজিও ছিলেন তিনি। একবার তাকে প্রধান চরিত্র না দিয়ে পার্শ্ব চরিত্র দেওয়ার জন্য পরিচালককে চড় মেরেছিলেন রাজেশ খান্না। এমন অভিযোগ রয়েছে। আর ওই ঘটনার পর থেকেই ক্রমশ ক্যারিয়ার খারাপ হতে শুরু করে তার। অত্যধিক পরিমাণে মদ্যপান অবভ্যাস ছিল তার।

ফারদিন খান: বলিউডে পা রাখার পর বেশ উপরের দিকেই উঠছিল ফারদিনের কেরিয়ারগ্রাফ। ফারদিন হয়ে গেল বলিউডের চকোলেট বয়। ফারদিন জড়িয়ে পড়েন বেআইনি মাদক এবং সাইকোট্রপিক দ্রব্যের পাচার কাণ্ডে। এরপরই তার ক্যারিয়ার শেষ হয়ে যায়।

বিবেক ওবেরয়: রাজেশ খান্নার মতো বদমেজাজ নয়, ফারদিনের মতো ড্রাগ-কাণ্ডও নয়। শোনা যায়, বিবেকের ক্যারিয়ার নষ্ট হওয়ার পিছনে রয়েছে তারই ডাকা একটি সাংবাদিক সম্মেলন। ঐশ্বরিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে ওঠার পর সালমান খান এক রাতে তাকে ৪১ বার ফোন করে খুনের হুমকি দিয়েছিলেন। সাংবাদিককের সামনে এটাই জানিয়েছিলেন বিবেক।

ববি দেওল: ভদ্রলোক ববির সমস্যা আবার ভিন্ন। বড্ড সময়জ্ঞানের অভাব ছিল তার। আর সে কারণেই পরিচালকরা তাকে অপছন্দ করতে শুরু করেন। ক্যারিয়ার শেষও হয়ে যায়। তবে নতুন করে ফিল্মে ঘুরে দাঁড়াতে চান বলি। সম্প্রতি একটি সাক্ষাত্কারে তিনি জানিয়েছেন, এ সমস্ত অপবাদও তিনি মুছে ফেলতে চান।

সঞ্জয় দত্ত: তার জীবন কীভাবে চড়াই-উতরাই পেরিয়ে চলেছে তা সকলেরই জানা। ড্রাগ এবং মাফিয়াদের সঙ্গে তার যোগাযোগ— এর প্রভাব পড়েছে তার ফিল্ম ক্যারিয়ারের উপর।