সারাদেশ

তাকে ভালোবাসি, তাই উচিৎ শিক্ষা দেয়ার জন্য এমনটি করেছি

এফপি

ডেস্কনিউজ; টানা এক বছর ধরে তার পেছনে পেছনে ঘুরেছি। তাকে ভালোবেসেছি। কিন্তু অন্যত্র তার বিয়ে ঠিক হয়ে যাওয়ায় তাকে উচিৎ শিক্ষা দিতে চেয়েছি। তার পরিবারকে ভয় দেখাতে চেয়েছি। তাই তাকে তুলে নিয়ে উচিৎ শিক্ষা দিয়েছি। বগুড়ার আলোচিত বখাটে ছাত্র ও প্রভাবশালী পরিবারের সন্তান অভি পুলিশকে এভাবেই সেদিনের ঘটনা বর্ণনা করেছেন। কলেজছাত্রীকে তুলে নিয়ে গোপনাঙ্গে ছুরিকাঘাতের মামলায় আটক শহর যুবলীগ সভাপতির ছেলে কাওসার আলম অভি পুলিশি রিমান্ডে নিজের অপরাধের কথা স্বীকার করেছেন। তিনি বলেন, আজিজুল হক কলেজের অনার্স তৃতীয় বর্ষের এক ছাত্রের সঙ্গে ওই ছাত্রীর বিয়ে ঠিক হয়। ওই ঘটনায় তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে ওই ছাত্রীকে ছুরিকাঘাত করেছেন।

এর আগে সোমবার বিকেলে অভিকে বগুড়ার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করে ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন করে পুলিশ। শুনানি শেষে তার ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন বিচারক। মঙ্গলবার তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। বুধবার তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হবে। এর আগে বগুড়া শহর যুবলীগ সভাপতির ছেলে কাওসার আলম অভি (২২) তার মা নাসরিন আলমকে সঙ্গে নিয়ে সদর থানায় আত্মসমর্পণ করেছিল।

সদর থানা পুলিশের ইন্সপেক্টর কামরুজ্জামান বলেন, অভির মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়েছে। সেখানে অনেক ছবি ও ভিডিও ক্লিপ পাওয়া গেছে। রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদকালে এসব ব্যাপারে তার বক্তব্য নেয়া হচ্ছে। তার বন্ধুমহলের গতিবিধিও পুলিশি নজরদারিতে রয়েছে।