লাইফস্টাইল

জানুন মাসে কতবার যৌ’ন সম্পর্কে প্রস্টেট ক্যান্সারের ঝুকি কমে

এফপি

ডেস্কনিউজ; প্রস্টেট পুরুষদের ইন্টারনাল অর্গানের মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ। এটা না থাকলে মানুষের জীবন শুধু ঝুঁকিপূর্ণ হয় তাই নয়, পুরুষের সুখময় দাম্পত্য জীবনে প্রোষ্টেট-এর রয়েছে এক অনবদ্য ভূমিকা। এই প্রস্টেট- এর নানা সমস্যা, নানা রোগ রয়েছে।

বিশ্ব জুড়ে এই সমস্যা কিন্তু প্রতিদিন বেড়েই চলছে। পঞ্চাশোর্ধ ব্যক্তিদের মধ্যে প্রস্টেটের সমস্যা সবচেয়ে বেশি দেখা যাচ্ছে। প্রস্টেট বড় হলে মূত্রত্যাগের সময় সমস্যা দেখা দিতে পারে, ব্যথা ও জ্বালা করতে পারে। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়, এই মুহূর্তে গোটা বিশ্বে পুরুষদের মধ্যে প্রস্টেট ক্যানসারের সম্ভাবনা বেশি দেখা যাচ্ছে।

এখন প্রশ্ন হল, কী করলে এই সমস্যা থেকে মুক্তি মিলতে পারে?

‘দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট’-এ প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, উপযুক্ত ডায়েট, ব্যায়াম ও নিয়মিত ডাক্তার দেখালে প্রস্টেট ক্যানসারের সম্ভাবনা কমে।

‘ইউরোপিয়ান ইউরোলজি’ নামে এক জার্নালে তাঁরা দাবি করেছেন, নিয়মিত যৌন সম্পর্ক, নইলে অন্তত হস্তমৈথুন করলে পুরুষদের প্রস্টেট ক্যানসারের সম্ভাবনা উল্লেখযোগ্যভাবে কমে। প্রায় ৩২ হাজার পুরুষের যৌন জীবনের উপর লাগাতার পরীক্ষা চালিয়ে এই সিদ্ধান্তে এসে পৌঁছেছেন গবেষকরা।

গবেষকরা বলছেন, “যাঁরা নিয়মিত হস্তমৈথুন বা যৌন সম্পর্ক স্থাপন করেন, তাঁদের মধ্যে ক্যানসারের সম্ভাবনা কম দেখা দেয়। কারণ, সেক্ষত্রে শরীর থেকে নির্দিষ্ট সময় অন্তর বীর্য বেরিয়ে যায়।”

কিন্তু কতবার বীর্যপাত হলে শরীর ভাল থাকবে? বিশেষজ্ঞরা বলছে, প্রতি মাসে অন্তত ২১ বার বীর্যপাত হলে পুরুষরা আরও বেশি সুস্থ থাকতে পারেন। যাঁরা বীর্যপাত করেন না তাঁদের তুলনায় যাঁরা মাসে ২১ বার বীর্যপাত করেন, তাঁদের মধ্যে প্রস্টেটে ক্যানসারের সম্ভাবনা অন্তত ৩৩ শতাংশ কম।

অবশ্য বীর্যপাত করলেই যে প্রস্টেটের সব সমস্যা মিটে যাবে এমনটা অবশ্যই নয়। বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, ওবেসিটি, তামাকজাত দ্রব্যের নেশা, হাই-ফ্যাটযুক্ত খাবার ও বংশপরম্পরায় প্রস্টেটের সমস্যা দেখা যেতে পারে।

ডাক্তার জেমস বাল্ক মনে করেন, একজন পূর্ণবয়স্ক পুরুষের জন্য উপযুক্ত ডায়েটই হতে পরে বহু রোগ থেকে মুক্তির চাবিকাঠি। তিনি বলছেন, “যদি কোনও পুরুষ অপারেটিং রুমে না ঢুকতে চান, তাহলে তাঁকে হাই-ফ্যাট যুক্ত খাবার ও পরিবেশের টক্সিন থেকে দূরে থাকতে হবে।”

তাঁর পরামর্শ, সুস্থ যৌন সম্পর্ক, উপযুক্ত ডায়েট, টমেটো, অর্গ্যানিক কফি, সবুজ শাকসবজি খাওয়া ও ধূমপান না করলে প্রস্টেট ক্যানসারের সম্ভাবনা অনেকটাই কমে।