বিনোদন

কুছ কুছ হোতা হ্যায় ছবির ২০ বছর পূর্তি অনুষ্ঠানে রানী মুখার্জি, শাহরুখ খান ও কাজল

কুছ কুছ হোতা হ্যায় ছবির ২০ বছর পূর্তি অনুষ্ঠানে রানী মুখার্জি, শাহরুখ খান ও কাজলএ ছবি তারুণ্যের। এ ছবি বন্ধুত্বের। এ ছবি প্রেমের। এ ছবি এক বাবা-মেয়ের সম্পর্কের। সব মসলাই ভরপুর ছিল করণ জোহরের কুছ কুছ হোতা হ্যায় ছবিতে। দেখতে দেখতে ২০ বছরে পা রাখল কুছ কুছ হোতা হ্যায়। পরিচালক হিসাবে করণের জীবনেরও ২০টি বসন্ত পার হয়ে গেল। আজও করণের এই ছবি তারুণ্যের প্রতীক। আজও অঞ্জলি, রাহুল, টিনারা যেন প্রেমের নতুন সংজ্ঞা শেখায়। ২০ বছর পর আজও তারা জীবন্ত। তাদের প্রেম-বন্ধুত্ব সবকিছু আজও অমলিন। সম্প্রতি মুম্বাইয়ের এক পাঁচ তারকা হোটেলে মহাসমারোহে পালন করা হলো কুছ কুছ হোতা হ্যায় ছবির ২০ বছর উদ্‌যাপন অনুষ্ঠান। তারায় তারায় উজ্জ্বল ছিল উদ্‌যাপনের এই রাত। করণের এই পার্টিতে সাংবাদিকদেরও আমন্ত্রণ ছিল। প্রথম আলোর মুম্বাই প্রতিনিধি দেবারতি ভট্টাচার্য উপস্থিত ছিলেন এই রাতে। করণ, শাহরুখ, কাজল, রানী—এই চার তারকার স্মৃতিতে ভেসে এল ২০ বছর আগের কুছ কুছ হোতা হ্যায় ছবিটি ঘিরে নানান মুহূর্ত। সেই আড্ডার ছোট ছোট গল্পকথা, কিছু মজা, কিছু স্মৃতি নিয়ে এই প্রতিবেদন।

আমি অপয়া
উদ্‌যাপনের এই রাতে অক্ষয় কুমারের স্ত্রী তথা বলিউড অভিনেত্রী টুইঙ্কেল খান্না নিজেকে অপয়া বললেন। তিনি যে ছবিতেই কাজ করেছেন, সেটাই ফ্লপ হয়েছে বলে দাবি এই অভিনেত্রীর। এমনকি শাহরুখের সঙ্গে বাদশা ছবিটিও চলেনি তাঁর। আর করণের কুছ কুছ হোতা হ্যায় ছবিতে প্রথমে টিনার চরিত্রে টুইঙ্কেলের অভিনয় করার কথা ছিল। পরে তিনি এই ছবিটি করেননি। তাঁর জায়গায় রানী মুখার্জিকে নেওয়া হয় এই চরিত্রে। আর ছবিটি যে কতটা সফল, তা সবার জানা। তাই মিসেস খান্নার বক্তব্য, এই ছবিতে তিনি থাকলে তা নিশ্চিতভাবে ফ্লপ করত। তবে রানীর এই সফলতার কারণ তিনিই, সেটাও মজার ছলে বলেন টুইঙ্কেল। তিনি ছবিটা করেননি বলেই তো রানী করার সুযোগ পেয়েছেন।

করণের দুর্ব্যবহার
কুছ কুছ হোতা হ্যায় ছবির ২০ বছর উদ্‌যাপনের রাতে রানী এক ঘটনার কথা সবাইকে জানান। এই ছবিতে তিনি শাহরুখের প্রেমিকা তথা স্ত্রী টিনার চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন। রানী জানান, সেটে একবার করণ তাঁর সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন। সেই ঘটনার কথা বলতে গিয়ে রানী বলেন, একদিন সকালে শুটিং ছিল। আমি জুনিয়র আর্টিস্টের সঙ্গে বসে প্রাতরাশ করছিলাম। করণ এসে আমার কাছ থেকে খাবারের প্লেট ছিনিয়ে নেয়। সে বলে যে আমি সেটে খাবার খেতে পারব না। এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে করণ বলেন, শুধু সেটে নয়, আমি রুম সার্ভিসকে বলেছিলাম, রানীর ঘরেও যাতে খাবার না দেয়। আসলে মনীশ ওর জন্য খুব স্টাইলিশ ও ছোটখাটো পোশাক বানিয়েছিল। আর এই পোশাক পরতে হলে রানীর রোগা থাকা জরুরি। আমি তখন চিন্তায় ছিলাম, ঘন ঘন খাওয়ার ফলে রানীর ওজন বেড়ে গেলে পোশাক কীভাবে ফিট হবে?

সালমানের এন্ট্রি
কুছ কুছ হোতা হ্যায়-এর এই মহাসমারোহে সালমান খান আসেননি। তবে তাঁর বার্তা এসেছিল। এই ছবির সঙ্গে ভাইজান কীভাবে যুক্ত হলেন, এ কথা সবাইকে তিনি জানান এ রাতে। কুছ কুছ হোতা হ্যায় ছবিতে সালমান কাজলের হবু স্বামীর ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন। এই ছবির জন্য তিনি সহঅভিনেতা হিসেবে প্রথমবার ফিল্মফেয়ার পুরস্কার পান। ভিডিওর মাধ্যমে সালমান বলেন, ‘করণ প্রথমে আমার বোন অলভিরার সঙ্গে যোগাযোগ করেন। এরপর একটা পার্টিতে আমি করণের সঙ্গে কথাবার্তা বলি। ছবির চিত্রনাট্য আমার পছন্দ হয়। আমি এই ছবিটা করি অলভিরা, যশ জোহর, হিরু জোহর, করণ জোহর ও শাহরুখের খানের জন্য।

কাজলের স্মৃতিলোপ
করণের ছবিটিকে ঘিরে এক মজাদার কাহিনি বলেন শাহরুখ। কুছ কুছ হোতা হ্যায় ছবির শুটিংয়ের সময় কাজলের সাময়িক স্মৃতিশক্তি লোপ পেয়েছিল বলে জানান বলিউডের বাদশা। শাহরুখ বলেন, কাজল খুব একটা ভালো সাইকেল চালাতে পারত না। মরিশাসে “ইয়ে লাড়কি হ্যায় দিওয়ানি” গানের শুটিংয়ের জন্য ও সাইকেল চালানোর প্র্যাকটিস করছিল। একবার ব্যালান্স না রাখতে পেরে পড়ে যায় ও। কাজল যেকোনো কিছুতেই জোরে জোরে হাসে। আমিও কাজলের পড়ে যাওয়া দেখে ওর মতো জোরে জোরে হাসতে থাকি। কাজলের মাথায় একটু চোট লেগেছিল তখন। এরপর দেখি, কাজল সবকিছু ভুলে গেছে। আমাকেও চিনতে পারে না। এমনকি অজয় ফোন করলে তাকেও চিনতে পারে না ও। কাজল মনে করতে পারে না যে ও কে, কোথায় এসেছে। এরপর আমরা ওকে হোটেলের ঘরে ওষুধপত্র খাইয়ে শুইয়ে দিই। কিছুক্ষণ পর আবার ওর সব মনে পড়ে।

আমি ভাগ্যবান
এদিন রাতে নিজেকে সবচেয়ে ভাগ্যবান পুরুষ বলেন শাহরুখ খান। বলিডের বাদশা মজার ছলে বলেন, ‘আমার মতো ভাগ্যবান পুরুষ কে আছে? একসঙ্গে দুজন মেয়ে আমাকে চুমু দেয়। কাজল এবং রানী—দুজনের থেকে একসঙ্গে দুই গালে চুমু পাই। তবে ছবির একটা দৃশ্য ঠিক ছিল না বলে মনে করেন শাহরুখ। তিনি মজার সুরে বলেন, আমি একদিকে কাজলকে গলা জড়িয়ে আলিঙ্গন করছি, অপর দিকে রানীর হাত ধরে আছি—এটা ঠিক ছিল না। আরও একটা দৃশ্য ঠিক ছিল না। কাজলের শাড়ির আঁচল খসে পড়ার পর আমি ওকে দেখতে থাকি।’ এর জবাবে করণ বলেন, হ্যাঁ, এটা ঠিক ছিল না। কারণ একজন মহিলাকে এখানে একটা বস্তু হিসেবে দেখানো হয়েছে।’

ফারাহর হুংকার
কুছ কুছ হোতা হ্যায় ছবির সেটে কোরিওগ্রাফার ফারাহ খানকে ঘিরে এক মজাদার ঘটনার কথা করণ জানান। তিনি বলেন, সেটে ফারাহ একদম অন্য মুডে থাকে। ও কাউকে তোয়াক্কা করে না। ‘কোই মিল গেয়া’ গানের শুটিংয়ের সময় রানী এক ধরনের স্টেপ করছে। এদিকে কাজল আর শাহরুখ অন্য এক রকম স্টেপ করছে। কাজল ভাবে যে সে আর শাহরুখ ঠিক করছে, রানী ভুল করছে। তাই কাজল রানীকে চিৎকার করে বলে যে সে (রানী) ভুল স্টেপ কেন করছে? এবার ফারাহ তাঁর সহজাত ভঙ্গিতে কাজল ও শাহরুখের ওপর চিৎকার করে ওঠে। ফারাহ রীতিমত হুংকার দিয়ে বলে, রানী ঠিক স্টেপ করছে। কাজল-শাহরুখ, তোমরা ভুলভাল স্টেপ করছ।”