আর্ন্তজাতিক

ইমরান খান প্রধানমন্ত্রী হবে, ছ’বছর আগে ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন যে ভারতীয় তারকা

ক্রিকেট-পণ্ডিত হিসাবে তিনি বিখ্যাত। অবশ্যই দেশের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যানও। সুনীল গাভাস্কারের ক্রিকেটীয় জ্ঞান নিয়ে কোনও প্রশ্ন তোলার জায়গাই নেই। গত কয়েক বছরে ভারতের এই প্রাক্তন ব্যাটসম্যান আবার ধারাভাষ্যেও হাত পাকিয়ে ফেলেছেন। কিন্তু এত কিছুর মাঝে তিনি যে আবার জ্যোতিষবিদ্যাতেও বেশ নাম-ডাক করে ফেলেছেন তা ক’জন জানত!

২০১২ এশিয়া কাপের কথা। এক ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল ভারত-বাংলাদেশ। ধারাভাষ্যকার হিসাবে ছিলেন সুনীল গাভাস্কার। তাঁর সঙ্গে ছিলেন পাকিস্তানের প্রাক্তন ব্যাটসম্যান রামিজ রাজা। সেই ম্যাচে শচীন টেন্ডুলকার ও সুরেশ রায়নার জুটি বাংলাদেশ বোলারদের বিরুদ্ধে অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠেছিল।

ভারতীয় জুটি ভাঙতে একটা সময় উঠেপড়ে লেগেছিলেন বাংলাদেশের বোলাররা। কিন্তু লাভের লাভ কিছু হচ্ছিল না। কমেন্ট্রি বক্সে সে সময় শচীন-রায়নার সেই জুটির পারফরম্যান্স নিয়েই আলোচনা করছিলেন সানি ও রামিজ। এর পর বাংলাদেশের মাশরাফি মোর্তাজা এলেন বোলিং করতে। তখন ৩৯তম ওভার। আর ঠিক সেই সময়ই সানি ও রামিজের মধ্যে আসল প্রসঙ্গ নিয়ে কথা শুরু হল।

পাকিস্তানের এক সাংবাদিক একটি ভিডিও প্রকাশ করেছেন সম্প্রতি। তাতে দেখা যাচ্ছে, বছর ছয়েক আগেই সুনীল সুনীল গাভাস্কার ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন, ইমরান খান পাকিস্তানের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হবেন। সেই ভিডিওতে রামিজ রাজাকে বলতে শোনা যাচ্ছে, ”একটা সময় ছিল যখন ভিভ রিচার্ডসের হুক আর পুল বোলারদের কাছে দুঃস্বপ্নের মতো হয়ে দাঁড়িয়েছিল।

তার পর এলেন মিস্টার সুনীল গাভাস্কার। তিনি আবার ইমরান খানের মতো বোলারের লাইন-লেন্থ সামলাতেও কোনও সমস্যায় পড়তেন না। বলের লাইনে গিয়ে সুন্দরভাবে ইমরানকে খেলে দিতেন মিস্টার সুনীল গাভাস্কার। আমি তখন বেশিরভাগ সময় শর্ট লেগে ফিল্ডিং করতাম। আর একটু পর পর ইমরান আমার কাছে আসত তখন। তার পর হঠাত্ করেই বলে উঠত, ওকে দেখ কেমন করে খেলে!

আমার তখন বোকার দাঁড়িয়ে থেকে মাথা নাড়ানো ছাড়া কোনও উপায় থাকত না”। তার পরই সুনীল গাভাস্কার থামিয়ে দেন রামিজকে। ভারতীয় ব্যাটসম্যান বলেন, ”সাবধান হও, তুমি কিন্তু পাকিস্তানের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রীকে টিভিতে প্রকাশ্যে নকল করছ”। এ পরই হাসির ফোয়ারা ছোটান দুই প্রাক্তন।