অর্থনীতি

আবারো বারছে ছিগারেটের দাম !

এফপি

ডেস্কনিউজ; অ্যান্টি টোব্যাকো মিডিয়া অ্যালায়েন্স (আত্মা) আগামী অর্থবছরের (২০১৯-২০) বাজেটে সিগারেটের মূল্যস্তর ৪টি থেকে কমিয়ে ২টি করাসহ তিনটি সুনির্দিষ্ট প্রস্তাব দিয়েছে । অপর দুটি প্রস্তাব হচ্ছে বিড়ির ফিল্টার এবং নন-ফিল্টার মূল্য বিভাজন তুলে দেয়া এবং ধোঁয়াবিহীন তামাক পণ্যের (জর্দা ও গুল) ট্যারিফ ভ্যালু প্রথা বিলুপ্ত করা। রোববার জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়ার সঙ্গে প্রাক-বাজেট বৈঠকে এসব প্রস্তাব দেয়া হয়। বৈঠকে এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, তামাকের ব্যাপারে আমরা আপসহীন।

চ্যানেল আইয়ের সিনিয়র নিউজ এডিটর মীর মাশরুর জামান রনি এনবিআর সম্মেলন কক্ষে ওই বৈঠকে আত্মার পক্ষ থেকে ২০১৯-২০ অর্থবছরের জন্য তামাক-কর বিষয়ক বাজেট প্রস্তাব উপস্থাপন করেন । এতে বলা হয়, ৩৫ ও ৪৮ টাকা মূল্যের দুটি স্তরকে একত্রিত করে একটি এবং ৭৫ ও ১০৫ টাকা মূল্যস্তরকে একত্রিত করে আরেকটিতে নিয়ে আসা। এ ছাড়া নিুস্তর ১০ শলাকা সিগারেটের খুচরা মূল্য ৫০ টাকা নির্ধারণ করে ৬০ শতাংশ এবং উচ্চস্তরে ১০ শলাকা সিগারেটের খুচরা মূল্য ন্যূনতম ১০৫ টাকা নির্ধারণ করে ৬৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক আরোপ করার প্রস্তাব দেয়া হয়। এ ছাড়া সব ক্ষেত্রে প্রতি ১০ শলাকা সিগারেটে ৫ টাকা সুনির্দিষ্ট সম্পূরক শুল্ক আরোপ করা।
দ্বিতীয় প্রস্তাবে বলা হয়, বিড়ির মূল্য বিভাজন তুলে দিয়ে ফিল্টারবিহীন ২৫ শলাকা বিড়ির খুচরা মূল্য ৩৫ টাকা নির্ধারণ করে ৪৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক ও ৬ টাকা সুনির্দিষ্ট সম্পূরক শুল্ক আরোপ করা এবং ফিল্টারযুক্ত ২০ শলাকা বিড়ির খুচরা মূল্য ২৮ টাকা নির্ধারণ করে ৪৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক এবং ৪.৮ টাকা সুনির্দিষ্ট সম্পূরক শুল্ক আরোপ করা।

শেষে বলা হয় ধোঁয়াবিহীন তামাক পণ্যে ট্যারিফ ভ্যালু প্রথা বিলুপ্ত করে সিগারেট ও বিড়ির ন্যায় ‘খুচরা মূল্যের’ ভিত্তিতে করারোপ করা। এ ক্ষেত্রে প্রতি ১০ গ্রাম জর্দার খুচরা মূল্য ৩৫ টাকা এবং প্রতি ১০ গ্রাম গুলের মূল্য ২০ টাকা নির্ধারণ করে ৪৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক আরোপ করা; এবং প্রতি ১০ গ্রাম জর্দার ওপর ৫ টাকা ও প্রতি ১০ গ্রাম গুলের ওপর ৩ টাকা সুনির্দিষ্ট সম্পূরক শুল্ক আরোপ করা।

আলোচনা সভায় আত্মার পক্ষে অংশ নেন একাত্তর টিভির জয়েন্ট চিফ নিউজ এডিটর মনির হোসেন লিটন, দৈনিক জনকণ্ঠের সিটি এডিটর কাওসার রহমান, বিডিনিউজ২৪.কম-এর চিফ ক্রাইম করসপনডেন্ট মর্তুজা হায়দার লিটন এবং আত্মার কনভেনর এবং এটিএন বাংলার নিউজ এডিটর নাদিরা কিরণ, কো-কনভেনর দৌলত আক্তার মালা প্রমুখ।