বিনোদন

আন্দোলনকারীদের যে উপাধি দিলেন নায়ক বাপ্পী, জানলে অবাক হবেন

‘আজ থেকে শুরু হয়েছে শোকের মাস। এই মাসে আমাদের জাতির পিতাকে সপরিবারে হত্য করেছিল দেশের শত্রুরা। নিতহ হয়েছিলেন ছোট শিশু শেখ রাসেল। কিন্তু আমার কাছে দুদিন ধরেই মনে হচ্ছে শেখ রাসেল মরে নাই, জীবন বাঁচাতে আজ তারা রাস্তায় নেমেছে। আশা করি, আমাদের অতিপ্রিয় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এই রাসেলদের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসবেন।’ কথাগুলো বলছিলেন ঢাকাই ছবির নায়ক বাপ্পী চৌধুরী।

গত রোববার বাসের চাপায় হতাহতের ঘটনার প্রতিবাদে স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থীরা রাজপথ অবরোধ করে রেখেছে চারদিন ধরে। নিরাপদ সড়কের দাবিতে চলা এই আন্দোলনে একাত্মতা প্রকাশ করে বাপ্পী আরো বলেন, ‘রাস্তায় আজ ছাত্ররা গাড়ির লাইসেন্স যাচাই করছে। অথচ এই কাজটি করার জন্য অবশ্যই দায়িত্বপ্রাপ্ত কেউ রয়েছেন, তারা কী করছেন? আমি জানি সব কিছু প্রধানমন্ত্রী একা করতে পারবেন না। সব কাজের জন্য তো আলাদা মন্ত্রণালয় রয়েছে। তারা কী করছেন? কেন দুদিন পরপর প্রিয়জনকে হারাতে হবে? মুত্যু একটা স্বাভাবিক বিষয়, সবাই একদিন মারা যাবে। কিন্তু আমরা স্বাভাবিক মৃত্যর নিশ্চয়তা চাই।’

বাপ্পী মনে করেন নিরাপদ সড়কের জন্য মানুষ জেগে উঠেছে। এর একটি সমাধান চান তিনি। বাপ্পী বলেন, ‘আমাদের দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, মহাকাশে স্যাটেলাইট পাঠানো হয়েছে। কিন্তু এই স্যাটেলাইট চালানোর জন্য প্রয়োজন নতুন মেধাবী মানুষ। যারা আজ বিভিন্ন স্কুল কলেজে পড়ছে, তারাই স্যাটেলাইট চালাবে, একদিন দেশ চালাবে। এরা যদি গাড়ি চাপায় মারা যায়, কি হবে এতকিছু দিয়ে?’

সড়ক দুর্ঘটনাকে দুর্ঘটনা বলতে রাজি নন বাপ্পী। বলেন, ‘আমি বিষয়টিকে অ্যাক্সিডেন্ট বলতে রাজি নই। এটা হত্যাকাণ্ড।’ অন্যদের মতো বাপ্পীও চান এসব হত্যাকাণ্ডের বিচার হোক।