লাইফস্টাইল

আড্ডায় ছেলেরা মজে মদে, মেয়েরা…

বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে গল্প বা আড্ডা দিতে পছন্দ করে না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া দুস্কর। গ্রামে পুরুষদের আড্ডার ঝড় ওঠে চায়ের দোকানে। আবার নারীদের আড্ডা বসে রসুই ঘরের উননের পাশে। শহরের চিত্রটা আবার ভিন্ন। সময়, পরিবেশ ও বয়সের তফাতে আড্ডার ধরনটা ভিন্ন হয়ে থাকে।

জ্ঞান-বিজ্ঞানের কথা থেকে শুরু করে ট্রেভেল স্টরি, এডভেঞ্চার, রোমান্স, ধর্ম, রাজনীতি, সমসাময়িক প্রসঙ্গ, সমাজ, শিল্প-সাহিত্য এর যেকোনো একটি উপাদান হতে পারে আড্ডার অংশ। সিরিয়াস এবং হালকা বিষয় সবই আলোচিত হয় আড্ডার আসরে। কেউ কেউ আবার সিরিয়াস কথাকে হালকাভাবে রসিয়ে রসিয়ে আকর্ষণীয় করে উপস্থাপন করেন। এ সময় শুধু আড্ডাই চলে না, সাথে থাকে বিভিন্ন খাবার-দাবারের ব্যবস্থা।

সম্প্রতি এক গবেষণায় দেখা গেছে, বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডায় মদ্যপানের চিন্তা এবং পরিকল্পনাই ঘোরে পুরুষদের মাথায়। এরপরেই যে জিনিসটা নিয়ে তারা সবচেয়ে বেশি আলোচনা করতে ভালবাসেন, সেটা হল ফুটবল।‌ শুধু তাই নয়, সমীক্ষায় এও দেখা গেছে মদ্যপানের সময় পুরুষরা কারও সম্পর্কে খারাপ মন্তব্য করতে পছন্দ করেন না। এ সময় পুরুষরা হাসেনও বেশি।

নারীরা মদ্যপান নিয়ে অতটা উৎসাহিত নন। তারা পছন্দ করেন বিভিন্ন বিষয় নিয়ে গল্প করতে। তার মধ্যে সবচেয়ে বেশি থাকে ফিল্ম বা সঙ্গীত জগতের তারকাদের নিয়ে আলোচনা।

‘‌জার্নাল বিহেভিয়ার রিসার্চ অ্যান্ড থেরাপি’‌ পত্রিকায় ছাপা হয়েছে এই তথ্য।

গবেষক দলের প্রধান ড.‌ মাইকেল সায়েট বলেছেন, ‘‌‘অনেকেই মনে করেন, পুরুষেরা আড্ডায় সুন্দরী নারীদের নিয়ে প্রচুর আলোচনা করেন। এই ধারণা ঠিক নয়। আলোচনা হয় ঠিকই। তবে যতটা ভাবা হয় অতটাও নয়।’’‌

এই প্রসঙ্গে ইলিওনোস বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক বলেছেন, ‘‘নারীদের নিয়ে পুরুষরা চিন্তা করেন ঠিকই। তবে সেই চিন্তা একা থাকলেই বাড়ে। দলবদ্ধ ভাবে থাকার সময় সাধারণত এ সব চিন্তা নিয়ে খুব একটা কেউ মাথা ঘামান না।’’‌